ব্যবহারিক নম্বর বাদে এইচএসসির ফল, বিজ্ঞানের শিক্ষার্থীদের উদ্বেগ

ব্যবহারিক নম্বর বাদে এইচএসসির ফল, বিজ্ঞানের শিক্ষার্থীদের উদ্বেগ
Spread the love

সোনালী বাংলাঃ অতিরিক্ত ও ব্যবহারিক পরীক্ষার নম্বর বাদ দিয়েই তৈরি হবে এইচএসসিতে অটো পাসের শিক্ষার্থীদের ফলাফলের গ্রেড পয়েন্ট। সংশ্লিষ্ট কমিটির সিদ্ধান্ত অনুযায়ী, এসএসসির ফলাফলের ৭৫ শতাংশ এবং জেএসসির ফলাফলের ২৫ শতাংশ নিয়ে এইচএসসির গ্রেড পয়েন্ট নির্ধারণ করা হবে। চলতি মাসের শেষ সপ্তাহেই এই ফলাফল প্রকাশের সম্ভাবনা রয়েছে। তবে ব্যবহারিক ও অতিরিক্ত নম্বর বাদ দিয়ে এইচএসসির ফলাফল তৈরির সিদ্ধান্তে উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন বিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষার্থীরা। তাদের মতে, বিজ্ঞানের বেশ কিছু বিষয়ে ব্যবহারিক পরীক্ষা নেয়া হয়। তাই এই নম্বর বিবেচনার বাইরে রাখা হলে মেধাবী হয়েও পিছিয়ে পড়বেন বিজ্ঞানের শিক্ষার্র্থীরা।

সংশ্লিষ্ট সূত্র মতে, জেএসসি ও এসএসসি পরীক্ষায় প্রাপ্ত নম্বরের ওপর এবারের এইচএসসির ফলাফল তৈরি করা হবে। এ দুই পরীক্ষায় যাদের সব বিষয়ে সর্বোচ্চ নম্বর রয়েছে তারা জিপিএ ৫ পাবে। তবে আগের দুই পরীক্ষায় অতিরিক্ত ও ব্যবহারিক বিষয়ে বেশি নম্বর পেয়ে জিপিএ ৫ পেলেও এইচএসসিতে মোট নম্বরের ওপর জিপিএ কমে যেতে পারে। কেননা এসএসসির ফল ৭৫ শতাংশ ও জেএসসির ২৫ শতাংশ গুরুত্ব দিয়ে উচ্চ মাধ্যমিকের ফল প্রকাশ করা হবে। তবে ইংলিশ মিডিয়ামের শিক্ষার্থীদের জন্য আন্তর্জাতিক নম্বরকে জিপিএতে রূপান্তর ও বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের (বাউবি) শিক্ষার্থীদের এসএসসির ফলাফলের ৮০ থেকে ৯০ শতাংশ নম্বর এইচএসসিতে দেয়ার প্রস্তাব করা হয়েছে।

সম্প্রতি শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে এ-সংক্রান্ত একটি প্রস্তাব পাঠিয়েছে এইচএসসি পরীক্ষার অটো পাসের নম্বর মূল্যায়ন কমিটি। শিগগিরই এটি অনুমোদন দিয়ে শিক্ষা বোর্ডগুলোতে পাঠালে ফলাফল তৈরির কাজ শুরু করা হবে।

উল্লেখ্য, করোনা মহামারীর কারণে ২০২০ সালের এইচএসসি পরীক্ষা বাতিল করা হয়েছে। ইতোমধ্যে সব পরীক্ষার্থীকে অটো পাস ঘোষণা করেছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়। একই সাথে জেএসসি ও এসএসসি পরীক্ষার প্রাপ্ত নম্বর মূল্যায়ন করে এ পরীক্ষার ফলাফল তৈরি করা হবে বলে ঘোষণা দেয়া হয়েছে। এ জন্য শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের একজন অতিরিক্ত সচিবকে আহ্বায়ক করে আট সদস্যের একটি কমিটি গঠন করা হয়।

এ বিষয়ে টেকনিক্যাল কমিটির সদস্য ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কম্পিউটার সায়েন্স বিভাগের অধ্যাপক ড. মোস্তাফিজুর রহমান জানান, এইচএসসির ফলাফল তৈরিতে সাধারণ একটি নীতিমালা করা হয়েছে। সেখানে এসএসসির অতিরিক্ত ও ব্যবহারিক পরীক্ষার নম্বর বিবেচনার বাইরে রাখার কথা বলা হয়েছে। আগের পরীক্ষা দু’টির নম্বর ও পরিসংখ্যানের ওপর ভিত্তি করে বিজ্ঞানসম্মত পদ্ধতিতে এইচএসসি পরীক্ষার নম্বর ও গ্রেড নির্ণয় করার প্রস্তাব দেয়া হয়েছে। তিনি আরো জানান, জেএসসি ও এসএসসির সব বিষয়ে যাদের ভালো নম্বর রয়েছে, তাদের এইচএসসিতেও ভালো নম্বর বা জিপিএ থাকবে। তবে যারা অতিরিক্ত বিষয় ও ব্যবহারিকে নম্বর বেশি পেয়ে জিপিএ ৫ পেয়েছে, এইচএসসিতে তাদের জিপিএ কমে যেতে পারে।

অন্য দিকে, বিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষার্থীরা জানিয়েছেন, উচ্চশিক্ষার ক্ষেত্রে তাদেরকে গ্রেড পয়েন্টের ওপর ভিত্তি করেই বিভিন্ন প্রতিযোগিতা করতে হয়। কিন্তু ব্যবহারিক পরীক্ষার নম্বর যদি বিবেচনার বাইরে রেখে এইচএসসির ফলাফল প্রস্তুত করা হয় তাহলে আমরা গ্রেড পয়েন্টের দিক দিয়ে অনেক পিছিয়ে পড়ব। মেডিক্যাল কলেজে ভর্তি হতে ইচ্ছুক আবিদ হাসান নামের এক শিক্ষার্থী জানান, মেডিক্যাল ও ডেন্টাল কলেজে শিক্ষার্থী ভর্তির নীতিমালা অনুযায়ী, মেডিক্যাল ও ডেন্টালে ভর্তির আবেদন করার জন্য বিজ্ঞান বিভাগ থেকে এসএসসি ও এইচএসসি বা সমমান পরীক্ষায় মোট জিপিএ হতে হয় কমপক্ষে ৯। উপজাতীয় ও পার্বত্য জেলার প্রার্থীদের ক্ষেত্রে মোট জিপিএ কমপক্ষে ৮ পয়েন্ট হতে হয়। তবে এককভাবে কোনো পরীক্ষায় জিপিএ ৩ দশমিক ৫-এর কম হলে তা গ্রহণযোগ্য নয়। এ ছাড়া এসএসসি এবং এইচএসসি বা সমমান পরীক্ষায় অবশ্যই পদার্থবিজ্ঞান, রসায়ন ও জীববিজ্ঞান থাকতে হবে। জীববিজ্ঞানে ন্যূনতম জিপিএ ৩ দশমিক ৫ থাকতে হবে; কিন্তু এ বছর পরিস্থিতি ভিন্ন। তাই বিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষার্থীদের মধ্যে উদ্বেগ রয়েছে।

শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের সচিব মাহবুব হোসেন এ বিষয়ে বলেন, এইচএসসির ফলাফল তৈরি করায় একটি জটিলতা রয়েছে। তবে যেহেতু এ বিষয়ে একটি টেকনিক্যাল কমিটি শুরু থেকে কাজ করছে; আশা করছি তারা একটি সহজ ও সঠিক সমাধানে পৌঁছতে পারবে। তিনি আরো জানান, ইতোমধ্যে একটি প্রস্তাবনা আমরা পেয়েছি। সেটি পর্যবেক্ষণ করা হচ্ছে। এর ওপরে একটি নীতিমালা প্রণয়ন করে এইচএসসি পরীক্ষার ফলাফল তৈরি করা হবে। প্রস্তাবটি অনুমোদন হলে দ্রুত সময়ের মধ্যে তা শিক্ষা বোর্ডগুলোতে পাঠানো হবে। চলতি মাসের শেষের দিকে এইচএসসির ফলাফল প্রকাশ করা হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *