অপরাধ ট্রাইব্যুনালের প্রসিকিউটর মোহাম্মদ আলীকে অপসারণ

অপরাধ ট্রাইব্যুনালের প্রসিকিউটর মোহাম্মদ আলীকে অপসারণ
Spread the love

আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালের প্রসিকিউটর মোহাম্মদ আলীকে অপসারণ করেছে সরকার। রোববার আইন মন্ত্রণালয়ের আইন ও বিচার বিভাগের সলিসিটর অনুবিভাগ থেকে তাকে অপসারণের প্রজ্ঞাপন জারি হয়।

শৃঙ্খলা ও পেশাগত আচরণবিধি ভঙ্গ এবং অসদাচরণের দায়ে তাকে অপসারণ করা হয়েছে বলে প্রজ্ঞাপনে জানানো হয়।

মোহাম্মদ আলী ২০১১ সালের ৫ অক্টোবর প্রসিকিউটর হিসেবে নিয়োগ পেয়েছিলেন।

অভিযোগ ওঠার পর ২০১৬ সালে তাকে মামলা পরিচালনার দায়িত্ব থেকে সরানো হয়েছিল। এরপর ওই বছরের ফেব্রুয়ারিতে তাকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়।

যুদ্ধাপরাধ ট্রাইব্যুনাল তখন এক নোটিসে জানিয়েছিল, প্রসিকিউটর মোহাম্মদ আলীকে আলবদর শামসুল হক গং ও হোসেন তরফদারসহ ট্রাইব্যুনালের অন্যান্য মামলার তদন্ত কার্যক্রম থেকে জনস্বার্থে প্রত্যাহার করা হল।

গণমাধ্যমে তখন খবর এসেছিল, মোহাম্মদ আলী একটি মামলায় এক আসামির জামিনের জন্য কাজ করছিলেন।

সোনালী বাংলাঃ যুদ্ধাপরাধ ট্রাইব্যুনালের আরেক প্রসিকিউটর জেয়াদ আল মালুম সাংবাদিকদের বলেন,‘পেশাগত অসদাচরণের অভিযোগে তাকে অপসারণের জন্য চিফ প্রসিকিউটর বেশ আগেই মন্ত্রণালয়ে চিঠি পাঠিয়েছিল এবং পেশাগত অভিযোগটি নিষ্পত্তি না হওয়া পর্যন্ত চিফ প্রসিকিউটর তার ক্ষমতাবলে মোহাম্মদ আলীকে প্রসিকিউশনের সমস্ত দায়-দায়িত্ব পালন থেকে বিরত রেখেছিল। এরপর সে প্রসিকিউশনে কখনও আসতো না। কিন্তু গত কয়েক বছর ধরে বেতন-ভাতা গ্রহণ করে যাচ্ছিল। বহু আগেই তাকে অপসারণ করা উচিৎ ছিল। কিন্তু আইন মন্ত্রণালয় তাকে অপসারণের প্রজ্ঞাপনটা আজ জারি করল’।

এর আগে গত ১১ নভেম্বর মানবতাবিরোধী অপরাধ মামলার এক আসামির সঙ্গে গোপন বৈঠকের ঘটনায় আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালের প্রসিকিউটর পদ থেকে আইনজীবী তুরিন আফরোজকে অপসারণ করে সরকার।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *